স্বাস্থ্য

আধাসেদ্ধ ভাত খাওয়া ধূমপানের মতোই বিপজ্জনক

(Last Updated On: নভেম্বর ৩০, ২০২১)

সঠিকভাবে রান্না না করা চালের মধ্যে ক্ষতিকারক আর্সেনিক ধাতু রয়েছে যা প্রজনন ক্ষমতায় বাধা সৃষ্টি করতে পারে এবং ক্যান্সারের মতো মরণ রোগের জন্ম দিতে পারে। জানাচ্ছেন ফার্টিলিটি বিশেষজ্ঞরা। এর ফলে নানান ক্ষেত্রে আর্সেনিক বিষক্রিয়ার সম্ভাবনাও থেকে যায়।

আর্সেনিক এক ধরনের কেমিক্যাল, যা নানান ধরনের খনিজে উপস্থিত থাকে। ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইনসেক্টিসাইডস ও পেস্টিসাইডসে এর ব্যবহার করা হয়। আবার এমন কিছু দেশ রয়েছে, যেখানে ভূগর্ভস্থ জলে আর্সেনিকের স্তর অনেক বেশি। এর ফলে আর্সেনিক বিষক্রিয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পেতে পারে। যা শরীরে গেলে বমি, পেট ব্যথা, ডায়রিয়ার সমস্যা দেখা দিতে পারে।

এটি ক্যান্সারকেও উদ্দীপিত করে দেয়। আধাসেদ্ধ ভাত এই ফাইব্রয়েড বা টিউমারের ঝুঁকি আরো বাড়িয়ে দেয়। পাস্তা যেভাবে প্যাকেট খুলেই সেদ্ধ করে খেয়ে নেওয়া যায়, ভাতের ক্ষেত্রে ততটাই প্রয়োজন ভালোমত সেদ্ধ হওয়া। চালের ওপর নানান সমীক্ষা থেকে উঠে এসেছে যে, এটি একটি কার্সিনোজেন, যা ক্যান্সারের সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে।

৯০-এর দশকে ক্যালিফোর্নিয়া টিচার্স স্টাডিতে মহিলাদের ওপর সমীক্ষা চালিয়ে, স্তন ক্যান্সার-সহ নানান ধরনের ক্যানসারের সম্ভাব্য ঝুঁকি চিহ্নিত করা হয়েছিল। এর ফলোআপের সময় মোট ৯,৪০০ জন অংশগ্রহণকারী মহিলার কর্কট রোগ ধরা পড়ে। এর মধ্যে স্তন ও ফুসফুসের ক্যান্সারের রোগীদের সংখ্যা ছিল সবচেয়ে বেশি।

আর্সেনিকের প্রভাব কমাতে পাত্রে ৫:১ অনুপাতে জল নিয়ে তার মধ্যে চাল দিয়ে সারারাত ভিজিয়ে রাখার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এর মাধ্যমে চালে ক্ষতিকারক কোনো ধাতু থাকলে তার প্রভাব ৮০% কমিয়ে দেবে। কারণ প্রতিদিন এক প্যাকেট সিগারেট খাওয়া যেমন আপনার ক্যান্সারের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয় যদি আপনি সেই অভ্যাস থেকে বেরিয়ে না আসেন, ভাতের ক্ষেত্রেও ঠিক তাই।

চাল ভালো করে ধুইয়ে ফুটিয়ে না খেলে সেটিও আপনার দেহে ক্যান্সারের প্রবণতা বাড়িয়ে দিতে পারে। তাই হাতে সময় থাকতে সাবধান হন। শুধু ভারতই নয়, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশে ভাতই খাওয়া হয় সবচেয়ে বেশি।

ভিটামিন, খনিজ ও কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ ভাত বহুক্ষণ পেট ভরে রাখে। তাই আধাকাঁচা ভাত খাওয়ার অভ্যাস এখন থেকেই ছেড়ে দিন। সূত্র :bodyandsoul.com

Hits: 7