শিক্ষা

২৪ মে বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে কি না, জানা যাবে আজ

(Last Updated On: মে ৫, ২০২১)

করোনাভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। কয়েক দফা ছুটি বাড়ানোর পর আগামী ২৪ মে থেকে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার তারিখ নির্ধারণ রয়েছে। তবে এর মধ্যে দেশে করোনার প্রার্দুভাব বেড়ে যাওয়ায় এ মুহূর্তে বিশ্ববিদ্যালয় এবং আবাসিক হল খুলে দেওয়া যাবে কি না তা নিয়ে অনিশ্চিয়তা তৈরি হয়েছে।

এসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বুধবার (৫ মে) পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সংগঠন ‘বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদ’র স্ট্যান্ডিং কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে সিদ্ধান্ত হবে পূর্ব ঘোষিত তারিখ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে নাকি নতুন কোনো তারিখ দেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদের সভাপতি ও চুয়েটের উপাচার্য প্রফেসর ড. রফিকুর আলম বলেন, করোনা পরিস্থিতি, টিকা কার্যক্রমসহ করোনাকালীন শিক্ষা কার্যক্রম নিয়ে আজকের বৈঠকে আলোচনা হবে। বৈঠকের সিদ্ধান্তগুলো আমরা সরকারের কাছে তুলে ধরব। সরকার তথা শিক্ষা মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নেবে এ মুহূর্তে কী করণীয়।

গত ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছিলেন, দেশের সরকারি বা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে সরাসরি ক্লাস শুরু হবে ঈদুল ফিতরের পর আগামী ২৪ মে। তার এক সপ্তাহ আগে ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আবাসিক হল খুলে দেওয়া হবে। তার আগে অবশ্যই সবাইকে করোনা টিকা নিতে হবে। হল খোলার আগেই আবাসিক শিক্ষার্থী, আবাসিক হলের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের টিকার ব্যবস্থা করা হবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকায় আবাসিক হলের শিক্ষার্থীদের বেশিরভাগই এখনও টিকার বাইরে। এ অবস্থায় করণীয় কী তা ভিসি পরিষদের বৈঠকে আলোচনা হবে বলে জানা গেছে।

বর্তমানে দেশে ৪৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এছাড়া অনুমোদিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আছে ১০৭টি। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে মোট ২২০টি আবাসিক হল আছে। যেখানে অবস্থান করা শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় এক লাখ ৩০ হাজার। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অনেকের বয়স ১৮ বছরের নিচে হওয়ায় তাদের এনআইডি নেই। ফলে টিকা নিবন্ধনের জটিলতায় পড়েছেন তারা।

Hits: 13