জাতীয়

‘বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিল’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

(Last Updated On: মার্চ ১৫, ২০২১)

‘বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিল’-এর উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার (১৫ মার্চ) ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে তিনি এ তহবিলের উদ্বোধন করেন।

এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের যেকোনো ধরনের উন্নয়ন প্রকল্পে নিজস্ব তহবিল থেকে বিনিয়োগ করতে পারবে বাংলাদেশ।

প্রথমবারের মতো এই তহবিল থেকে ‘পায়রা বন্দরের রাবনাবাদ চ্যানেলের ক্যাপিটাল ও মেইনটেইনেন্স ড্রেজিং’ শীর্ষক স্কিমে অর্থায়নের জন্য ঋণচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এতেও যুক্ত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঋণ না করে নিজেদের অর্থে বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়ন করছে এমন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, উন্নয়নে ম্যাজিক বলে কিছু নেই, ম্যাজিক হচ্ছে দেশপ্রেম।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পেতে জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসির (সিডিপি) চূড়ান্ত সুপারিশ পেয়েছে। মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে নিজেদের নিজের পায়ে চলতে হবে।

বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, দেশের মানুষকে স্বাবলম্বী করাই বর্তমান সরকারের লক্ষ্য। দেশের প্রতিটি মানুষই যেন স্বাবলম্বী হতে পারে সেজন্য তাদের জীবনমানের উন্নয়নে কাজ করছি আমরা। সবাইভাবে আমাদের উন্নয়নই ম্যাজিক। আর আমরা বলি, আমাদের উন্নয়নের ম্যাজিক দেশপ্রেম।

উন্নয়ন প্রকল্পে নিজেদের অর্থায়ন করার কথা জানিয়ে সরকারপ্রধান বলেন, কারও কাছে হাত পেতে হয়, নিজেদের অর্থ দিয়ে চলতে চাই। উন্নয়ন প্রকল্পে নিজেরা অর্থায়ন করব। দেশি-বিদেশি যারাই বিনিয়োগ করতে আসুক, আমরা নিজেরা অর্থায়ন করব। নিজেদের টাকায় অবকাঠামো উন্নয়ন শুরু হলে বিদেশি ঋণের দিকে তাকাতে হবে না। বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিল থেকে প্রাথমিক অর্থায়ন করা হবে।

করোনা দুর্যোগের মধ্যেও দেশকে এগিয়ে নিতে হবে এমন মন্তব্য করে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, দেশের মানুষের প্রতি দায়িত্ববোধ থেকে আওয়ামী লীগ কাজ করে। গ্রামের মানুষকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করে তোলা সরকারের দায়িত্ব।

দীর্ঘসময় ক্ষমতায় থাকায় উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এই সরকার ক্ষমতায় আছে বলেই আজকের এই উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে। দেশটাকে সঠিকভাবে জানতে পারলে, দেশকে নিয়ে ভাবলে, দেশের উন্নয়ন করা সম্ভব।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘৭৫ পরবর্তী সময়ে যারাই রাষ্ট্রক্ষমতায় ছিল, তাদের চিন্তাই ছিল কিভাবে বিদেশিদের কাছে হাত পাতা যায়। দেশের মানুষকে আত্মনির্ভরশীল করার কোনো চিন্তাই তাদের মধ্যে ছিল না। যুদ্ধাপরাধী আর পুলিশের হাতে ক্ষমতা থাকলে সে দেশের উন্নয়ন হতে পারে না।

‘আমাদের সরকার ক্ষমতায় এসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেখানো পথে কাজ করে আজকের এই দেশ গড়েছি। আজ উন্নয়নশীল দেশ থেকে আমরা স্বলোন্নত দেশের কাতারে পৌঁছেছি।’

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল এফসিএ, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বক্তব্য দেন।

এর আগে পায়রা বন্দরের ওপর নির্মিত একটি ভিডিও ডকুমেন্টারি উপস্থাপন করা হয়। পাশাপাশি দেশের সামষ্টিক অর্থনীতির বর্তমান অবস্থা নিয়ে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন দেন অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আবদুর রউফ তালুকদার এবং আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকারের নানা পদক্ষেপ ও উদ্যোগ তুলে ধরেন মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।